মেসওয়াকের মাসায়েলা

মেসওয়াক-এর ভাল বিষয়ক ঃ
১। মেসওয়াক পীলু বা যয়তুনের ডালের হওয়া উত্তম ।
২। মেসওয়াক কনিষ্ঠ আঙ্গুলের মত মোটা হওয়া উত্তম ।
৩। মেসওয়াক প্রথমে এক বিঘত পরিমান লম্বা হওয়া উত্তম ।
৪। মেসওয়াক নরম হওয়া মোনাসেব ।
৫। মেসওয়াক কম গিরা সম্পন্ন হওয়া উত্তম ।
৬। মেসওয়াকের ডাল কাচা হওয়া  উত্তম ।

মেসওয়াক ধরার তরীকা বিষয়ক ঃ
১। মেসওয়াক ডান হাতে ধরা মোস্তাহাব ।
২। মেসওয়াক ধরার তরীকা হল- কনিষ্ঠ আঙ্গুল মেসওয়াকের নিচে, বৃদ্ধ আঙ্গুলের অগ্রভাব মেসওয়াকের উপরের নিচে এবং অবশিষ্ট আঙ্গুলগুলো (মধ্যের তিন আঙ্গুল ) আওয়াকের উপর রাখবে।


 মেসওয়াকের দুআ ও যিকির বিষয়ক ঃ
১। বিসমিল্লাহ বলে  মেসওয়াক শুরু করবে ।
২। মেসওয়াক শুরু করার সময় দুআ পড়া মোস্তাহাব ।

মেসওয়াক করার তরীকা বিষয়ক ঃ 

১। মেসওয়াক শুরু করার পূর্বে ভিজিয়ে নেয়া উত্তম।
২। প্রথমে উপরের দাঁতের ডান দিকে অতঃপর বাম দিকে, তারপর নিচের দাঁতের ডান দিকে অতঃপর বাম দিকে , তারপর দাঁতের ভিতরের দিকে অনুরূপভাবে ঘষতে হবে। 
৩। এ ভাবে কমপক্ষে তিনবার করে ঘষবে। প্রতিবারেই নতুন পানি দিয়ে মেসওয়াক ভিজিয়ে নিবে।
৪। মেসওয়াক দাঁতের অগ্রভাগে , উপর ও নিচের তালুর অগ্রভাগে এবং জিহবার উপরিভাগেও করা  উত্তম।
৫। মেসওয়াক দাঁতের উপর  চওড়াভাবে ঘষা নিয়ম। ইমাম গাযযালী (রহঃ) উপর-নিচভাবে ঘষার কোথাও বলেছেন।  কমপক্ষে  চওড়াভাবে ঘষতে হবে।
৬। শোয়া অবস্থায় মেসওয়াক করা মাকরূহ।
৭। মেসওয়াক করার পর মেসওয়াক ধুয়ে দাঁড় করিয়ে রাখবে। 

       বি.দ্র. মেসওয়াক না থাকলে মেসওয়াকের বিকল্প হিসেবে ব্রাশ ব্যবহার করা যায়।  এতে মেসওয়াকের ডাল বিষয়ক সুন্নাত আদায় না হলেও মাজা ও পরিষ্কার করার সুন্নাত আদায় হয়ে যাবে অন্যথায় হাত দিয়ে বা মোটা কাপড় দিয়ে দাঁত মেজে নিতে হবে। হাত দিয়ে মাজার তরীকা হল- ডান হাতের বৃদ্ধ আঙ্গুল দিয়ে ডান পাশের দাঁতের উপরে অতঃপর নিচে, তারপর শাহাদাত (তর্জনী ) আঙ্গুল দিয়ে বাম পাশের দাঁতের উপরে অতঃপর নিচে ঘষতে হবে।


0 comments: